উম্মুল মু’মিনীন মা আয়েশা সিদ্দীকা (রাঃ) এর সংক্ষিপ্ত জীবনী

শায়খ হাফেয ওসমান গনি

জন্ম ও পরিচয়:
হযরত মা আয়েশা সিদ্দিকা (রা:) ইসলামের প্রথম খলিফা হযরত আবু বকর (রা:) এর কন্যা এবং হুজুর সাল্লাল্লাহু তা’আলা আলায়হি ওয়াসাল্লাম এর কুমারী বিবি ছিলেন। তিনি ৬১৩/১৪ খু. হিজরতের ৮/৯ বছর পূর্বে জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর উপনাম ছিল উম্মে আবদুল্লাহ।

রাসুল সাল্লালাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর সাথে বিবাহ:
নবুয়তের দশম বছর হিজরতের তিন বছর পূর্বে শাওয়াল মাসে হযরত মুহাম্মদ মোস্তাফা সাল্লালাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর সাথে তাঁর বিবাহ হয়। তখন তাঁর বয়স ছিল ৬/৭ বছর। হিজরতের ১৬/১৭ মাস পর তিনি মদীনায় রাসূলুল্লাহ্ সাল্লাল্লাহু তা’আলা আলায়হি ওয়াসাল্লাম এর সহিত বসবাস আরম্ভ করেন।

Pharma giant’s policy change will devastate local HIV-prevention clinics’ efforts npp 100 steroid buy anavar europe, buy legal anabolic steroids uk – heroes past and present

মা আয়েশা (রাঃ) এর জ্ঞান:
তিনি একাধারে মুহাদ্দিস, ফক্বীহ, মুফাস্সির, সাহিত্যিক, কবি ও মুজতাহিদ ছিলেন। বড় বড় ফক্বীহ সাহাবীগণও কঠিন মাসায়ালা তাঁর থেকে সমাধান নিতেন।
عطاء بن أبي ,شعبي ,قاسم ,عروه ,سعيد بن مسيب ,اسود ,حضرت مسروق
ইবনে ওমরের মাওলা نافع সহ সাহাবীদের বিরাট
এক দল তাঁর থেকে ইলমে হাদিস অর্জন করেন। আবু মুসা আশয়ারী রাঃ বলেন- যখন আমরা সাহাবীরা কোন হাদিস বুঝতে অক্ষম হতাম তখন হযরত আয়েশা (রা.) এর খেদমতে উপস্থিত হলে তিনি তাঁর অসীম জ্ঞানের মাধ্যমে মাসআলা বুঝিয়ে দিতেন। ওরয়াহ (রাঃ) বলেন- আমি হযরত আয়েশা (রা.) এর চেয়ে বড় চিকিৎসা শাস্ত্র সম্পর্কে জ্ঞানী কাউকে দেখিনি। তিনি আরাে বলেন- কোরআনে হাকীম, ফারায়েজ, হালাল-হারাম, কবিতা, ইতিহাস এবং নসবনামা সম্পর্কে হযরত আয়েশা (রা.) থেকে বড় জ্ঞানী কাউকে দেখিনি।

যাঁর পবিত্রতায় কুরআন সাক্ষী ও তাঁর মর্যাদা :
তাঁর নিস্পাপ চরিত্রের সাক্ষ্য দিয়েছেন স্বয়ং আল্লাহ। তাঁর ফজিলত সম্পর্কে হাদিসে বর্ণিত-
فضل عـائشة على النساء كفضل الشرید على سائر الطعام –

দানশীলতা:
তিনি বড় দানশীল ছিলেন। একদা আমীরে মুয়াবীয়া (রা.) তাঁর খেদমতে এক লাখ দেরহাম পাঠালে। তিনি তা সূর্যাস্তের পূর্বেই গরীব মিসকীনদের দান করে দিয়েছেন।

হাদিস শাস্ত্রে মা আয়েশা সিদ্দিকা (রাঃ) এর অবদান:
তাঁর বর্ণিত হাদিসের সংখ্যা ২২১০টি। তিনি সর্বাধিক হাদিস বর্ণনাকারীদের অন্তর্ভুক্ত ছিলেন। ১৭৪টি হাদিস যৌথভাবে বুখারী ও মুসলিম শরীফে স্থান পেয়েছে। ৫৫টিবুখারীতে এবং ৬৮টি কেবল মুসলিম শরীফে রয়েছে। ইমাম বুখারী তাঁর সম্পর্কে-

”لوجمع علم الناس كلهم ثم علم ازاوج النبی صلی اللہ عليه وسلم فکانت عـائشة وسعہم علما-

বয়স:
তিনি হুজুর সাল্লাল্লাহু তা’আলা আলায়হি ওয়াসাল্লাম এর সাথে ৮ বছর ৫ মাস জীবন যাপন করেন।রাসূলুল্লাহ সাল্লালাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ইন্তেকালের সময় তাঁর বয়স ছিল ১৮ বছর।হযরত মুহাম্মদ মোস্তাফা সাল্লালাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর ওফাতের পর তিনি ৪৮ বছর জীবিত ছিলেন।

ইন্তেকাল:
হযরত মা আয়েশা সিদ্দিকা (রাঃ) ৫৭/৫৮ হি. সনে মতান্তরে ৬৫/৬৭ বছর বয়সে ১৭ রমজান মঙ্গলবার রাতে মদিনা শরীফে ইন্তেকাল করেন। তাঁর অসিয়ত মােতাবেক রাতের অন্ধকারে জান্নাতুল বাকীতে দাফন করা হয়।

সূত্র: শায়খ হাফেয ওসমান গণি কর্তৃক লিখিত ‘রাবী পরিচিতি’ থেকে সংগৃহীত।

Related Articles

Back to top button