চমেক হাসপাতালে গাউসিয়া কমিটির হুইল চেয়ার ও প্যাডেস্ট্যান্ড ফ্যান প্রদান

নিজস্ব প্রতিবেদক

সীতাকুণ্ড বিএম কন্টেইনার ডিপোতে বিস্ফোরণে দগ্ধ-আহত সহ বিভিন্ন স্তরের রোগী সেবার জন্যে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোহাম্মদ শামীম আহসানকে ৮টি হুইল চেয়ার ও ৮ পেডেট্যান্ড ফ্যান প্রদান করলো গাউসিয়া কমিটি বাংলাদেশ।

এ উপলক্ষে এক সংক্ষিপ্ত হস্তান্তর অনুষ্ঠান আজ (রবিবার) সকালে চমেক হাসপাতালের ইমার্জেন্সি গেইটে কমিটির চেয়ারম্যান আলহাজ্ব পেয়ার মুহাম্মদ কমিশনারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোহাম্মদ শামীম আহসান।

সীতাকুণ্ড ট্রাজেডিতে গাউসিয়া কমিটির পক্ষ থেকে প্রদানকৃত সেবা ও ভবিষ্যত কর্মপরিকল্পনা উপস্থাপন করেন গাউসিয়া কমিটির কেন্দ্রীয় যুগ্ম-মহাসচিব ও মানবিক সেবা কর্মসূচির প্রধান সমন্বয়ক আলহাজ্ব এড. মোছাহেব উদ্দিন বখতিয়ার।

কর্মসূচির সদস্য মুহাম্মদ এরশাদ খতিবীর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন আলহাজ্ব আহসান হাবীব চৌধুরী হাসান, ৩৫নং বক্সিরহাট গাউসিয়া কমিটির সভাপতি হাজী আব্দুস সাত্তার, সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব নুরুল আজিম নূরু, কর্ণফুলী মানবিক টীম প্রধান মুহাম্মদ ইমতিয়াজ উদ্দিন, বক্সিরহাট ইউনিট সম্পাদক মুহাম্মদ রাশেদ উদ্দিন, সদস্য মুহাম্মদ সোলাইমান প্রমুখ।

চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোহাম্মদ শামীম আহসান বলেন, সীতাকুণ্ড বিএম কন্টেইনার ডিপোতে বিস্ফোরণে অগ্নিদগ্ধ হতাহতদের জীবনবাজি রেখে উদ্ধার, পরিবহন, রোগী সেবা, ব্লাড ডোনেশন সহ সামগ্রিক সেবার ভূয়সী প্রশংসা করে ভবিষ্যতে কর্মসূচি মানবতার মান রক্ষায় নির্ভীক সেনা বলে মন্তব্য করেন। করোনাকালের অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগিয়ে গাউসিয়া কমিটি সীতাকুণ্ড ট্রাজেডির মতো জাতীয় দূর্যোগে যে সাহসিকতা ও যোগ্যতার পরিচয় দিয়ে মানোত্তীর্ণের উপরে জাতির আস্থার প্রতীক বলেও মন্তব্য করেন।

তিনি দুঃস্থ মানবতার খেদমতে লোভ-লালসার উর্ধ্বে গাউসিয়া কমিটি আরো বেশি সফলতা অর্জন করবে বলে প্রত্যাশা করেন। চমেক হাসপাতালের গরীব রোগীদের জন্য সামগ্রী প্রদান করায় গাউসিয়া কমিটিকে ধন্যবাদ জানান ও ভবিষ্যৎ কর্মসূচী ও পরিকল্পনায় সহযোগিতার আশ্বাস দেন।

Related Articles

Back to top button