৬ প্রাদেশিক রাজধানী ৪ দিনে দখল করলো তালেবান | আন্তর্জাতিক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

নতুন করে আফগানিস্তানের সামানগান প্রদেশের রাজধানী আয়বাক শহর দখলে নিল তালেবান। এ নিয়ে শুক্রবার থেকে ৪ দিনে ছয়টি শহরের নিয়ন্ত্রণ চলে গেল জঙ্গিদের কাছে।

প্রদেশটির উপ-গভর্নর জানান, কোনো লড়াই ছাড়াই শহরটি তালেবানের হাতে চলে গেছে। এদিকে অস্ত্রবিরতির আন্তর্জাতিক আহ্বানও প্রত্যাখ্যান করেছে তারা। বিভিন্ন শহরে তালেবানদের সাথে সরকারি বাহিনীর তীব্র লড়াই চলছে। একদিনে ৫৭৯ জঙ্গি নিহত হয়েছে বলে দাবি আফগান সরকারের।

তালেবানের দাবি, আয়বাকের সব সরকারি ভবন, গোয়েন্দা অধিদপ্তর ও পুলিশ সদরদপ্তর খালি করা হয়েছে। এর আগে, রোববার কুন্দুজসহ তিন শহরের দখল নেয় তালেবান।

ইতিমধ্যেই সরকারি বাহিনী ও তালেবানের সংঘাতের মধ্যে, সব কিছু হারিয়ে রাজধানী কাবুলে আশ্রয় নিয়েছেন কুন্দুজ ও তাখার বাসিন্দারা।

আফগানিস্তানে বেড়েই চলেছে সহিংসতায় শিশুদের প্রাণহানি। আফগান বাহিনী ও তালেবানের মধ্যে সংঘর্ষে বহু শিশু নিহত হয়েছে। এ নিয়ে উদ্বেগ জানিয়েছে জাতিসংঘ। ইউনিসেফের দাবি, গত তিন দিনে তিন প্রদেশে অন্তত ২৭ শিশু নিহত হয়েছে।

শিশুদের প্রতি সহিংস আচরণে উদ্বিগ্ন ইউনিসেফ বলছে, এক মাসের সহিংসতায় এক হাজারের বেশি সাধারণ আফগান নাগরিক নিহত হয়েছে। সংস্থাটি জানায়, শিশুদের বসবাসের জন্য অনুপযোগী দেশটিতে শিশু মৃত্যুর হার বেড়েই চলেছে।

২৭ শিশু নিহত হওয়া ছাড়াও ৭২ ঘণ্টায় কান্দাহার, খোস্ত ও পাকতিয়া প্রদেশে আহত হয়েছে ১৩৬ জন। রাস্তার পাশে পুঁতে রাখা বোমা, ক্রসফায়ারের শিকার হচ্ছে বাস্তুচ্যুত শিশুরা।

বাসিন্দারা জানান, বোমা হামলা হচ্ছে। রকেট আমার বাড়িতে আঘাত করেছে। আমাদের পালিয়ে আসতে হয়েছে। এখন আমরা একটি পার্কে আছে। জানি না, কোথায় যাবো। কোনো টাকা নেই, প্রয়োজনীয় কোনো কিছুই সঙ্গে করে আনতে পারিনি।

আমাদের ঘর-বাড়ি কিছুই নেই। পরে কাবুলে এসে আশ্রয় নিয়েছি। কিন্তু এখানে এতো মানুষ, আমরা কিছুই বুঝতে পাচ্ছি না।

নানগারহার, কান্দাহার, হেরাতে তালেবানের সঙ্গে সরকারি বাহিনীর তীব্র লড়াই চলছে। আফগান সরকারের দাবি, একদিনে দেশজুড়ে সেনাবাহিনীর অভিযানে ৫ শতাধিক তালেবান নিহত ও ১৬১ জন আহত হয়েছে।

Related Articles

Back to top button